1. admin@bengalexclusive.com : admin :
  2. bibhas@sudhankarwinner.com : BIBHAS DUTTA : BIBHAS DUTTA
  3. sasanka@bengalexclusive.com : Sasanka Paul : Sasanka Paul
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৫:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বিজেপির ঘোষিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভে বিজেপি কর্মীরা!লাগাতার বিক্ষোভ চালানোর হুমকি রাজ্য নেতৃত্বকে আরো দুর্বল হলো তৃণমূলের ঘাঁটি!টিকিট না পেয়ে দল ছাড়লেন ববি হাকিমের জামাই কাল বিজেপির ব্রিগেডে তারকাদের ব্রিগেড!থাকছে অক্ষয় কুমার-গৌতম গম্ভীরেরা প্রার্থী তালিকায় জায়গা না পেয়ে মুকুলের হাত ধরে বিজেপিতে একাধিক নেতা-নেত্রী “দলে থেকে কাজ করতে পারছিনা”বলা হাফ মীরজাফরদেরও প্রার্থী তালিকায় জায়গা দিলো তৃণমূল এবার দলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে আরাবুল ছত্রধরকে রেড কার্ড দেখিয়ে জঙ্গলমহলে তৃণমূলের খেলা পন্ড করতে মরিয়া N I A বিজেপির সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় নাম দশহাজার!অস্বস্তিতে দিলীপ-শুভেন্দুরা জানুন রাজ্যে কবে? কোথায় ভোট ! কোচবিহারে তৃণমূলকে ধরাশায়ী করতে পারে AIMIM

Google Ads

বিজেপিতে গিয়ে নিস্তার নেই মুকুলের!আবারও সম্পত্তির হিসেব চাইলো ই ডি

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২০
  • ৮৭ বার পঠিত

এখনো কাটেনি সারদা-নারোদা তদন্তের জের, নিস্তার পাননি কোনো নেতা নেত্রীই।এবার মুকুল রায় এবং তার স্ত্রীর সমস্ত ব্যাংক একাউন্ট এবং সম্পত্তির ডকুমেন্ট চাইলো ই ডি(এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট)। সদ্য এই সংক্রান্ত নোটিস দেওয়া হয়েছে মুকুল রায়ের হাতে।
এমনকি খোদ সিবিআই এর সাথেও দেখা করতে হতে পারে মুকুল রায়কে।
ই ডির তরফ থেকে জানা যাচ্ছে ৩ রা জুলাই তাকে ইমেলে নথি চাওয়া হয়েছিল এই সবের। বেশ কিছুটা জানিয়ে ডিটেলস পাঠিয়ে ছিলো তখন মুকুল রায় ৩১ এ জুলাই এর মধ্যে।
কিন্তু এরপরেও বাকি রয়েছে অনেক তথ্যই যেগুলো সদ্য জানবার জন্য বলা হয়েছে। এর আগে একটাই ব্যাংক একাউন্টের নথি পাঠিয়েছিল মুকুল রায়। এবারে তার স্ত্রীরও ব্যাংক একাউন্ট এর তথ্য চাওয়া হয়েছে সমস্ত।
এর সাথে ২০১৭ থেকে ২০১৮ এর মধ্যেকার এবং ২০১৯ থেকে ২০২০ এর মধ্যেকার সালের আয়কর রিটার্নের তথ্যও চাওয়া হয়েছে।
এমনকি ২০১৩ থেকে ২০১৪ অবধি কি কি সম্পত্তি কিনেছেন তিনি তার সমস্ত হিসাবই পরিষ্কার করতে বলা হয়েছে এক সপ্তাহের মধ্যে।
মুকুল রায় এই চিঠির বিষয়ে জানিয়েছেন এরকম নোটিসের বিষয়ে এখনো তিনি জ্ঞাত নন, তার অফিসে গিয়ে তদারকি করবেন।

একসময় ভারতের অন্যতম বৃহত্তম চিট ফান্ড কেলেঙ্কারি সারদাতে নাম জড়িয়েছিল মুকুল রায়ের তৃণমূলের বড়ো পদে থাকা কালীন।
এর পর সারদার কর্ণধার সুদীপ্ত সেনের গ্রেফতারের পরে তার গাড়ির ড্রাইভার কে জেরা করে জানা যায় কলকাতা থেকে বেরোনোর পর সুদীপ্ত সেনের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ হয়েছিল মুকুলের।
তদন্ত চলাকালীন মুকুল রায়ের ঘনিষ্ট এক পুলিশ অফিসার এই সংক্রান্ত অনেক তথ্য নষ্ট করে দিয়েছেন বলেও জানা যায়।
এরপরে “নারদ” দুর্নীতিতেও নাম জড়িয়ে পড়ে মুকুলের।
এরপরে অনেকে বলেন এই সমস্ত মামলা থেকে বাঁচতে মুকুল রায় নাকি বিজেপি জয়েন করেন ২০১৭ তে।
এরপরে আবারও ই ডি র এই তদন্তের সামনে কি দাঁড়াতে পারবে মুকুল রায়! নাকি বিধানসভা নির্বাচনের আগেই গ্রেফতার হতে হবে তাকে সেটাই দেখার।

প্রতিবেদনে-শশাঙ্ক

Google Ads

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর

Google Ads

© All rights reserved © 2020 bengalexclusive.com
Theme Customized By BreakingNews